বিশ্বকাপের বল ত্রুটিপূর্ণ

ডেভিড ডে গিয়া এবং মার্ক-এন্ডরে  টের স্টেগেন ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপের  অফিশিয়াল  বলের সমালোচনা করেছেন, এবং পেপ রিনা বলেছে টুর্নামেন্টের আগে যেন এটি পরিবর্তন করা হয়।

কিছুদিন আগেই আর্জেন্টিনার তারকা লিওনেল মেসি ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ বল ‘অ্যাডিডাস টেলস্টর ১৮’ এর সুনাম করেছিলেন। কিন্তু গত শনিবার আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ ‘স্পেন বনাম জার্মানি’ এর খেলা শেষে দুই দলের গোলকিপারই বলটিকে নিয়ে সমালোচনা করা করেছেন।

ম্যাচের শেষে স্পেন এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর গোলকিপার ডেভিড ডে গিয়া বলেন “এটা সত্যিই অদ্ভুত। এটা অনেক ভাল করা যেতে পারত।” যদিও তিনি এই ম্যাচে থমাস মুলার এর ডি-বক্স এর বাইরে থেকে একটি ড্রাইভ বাতিল করেন।

স্প্যানিশ প্রত্রিকা এএস এর এক সাক্ষাৎকারে বার্সেলোনা এবং জার্মানির গোলরক্ষক  টের স্টেগেন বলেন ‘বলটি আরও ভাল হতে পারত, এটি অনেক লাফায়। কিন্তু আমি মনে করি এটাকে ব্যাবহার উপযোগী করার জন্য এটার সাথে কাজ করতে হবে – এবং বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটাকে কবজী করার চেষ্টা করতে হবে’।

‘এছারা আমাদের আর কোন উপায় নেই’।

ডেভিড ডে গিয়ার স্বদেশী এবং নাপোলির গোলরক্ষক পেপ রিনা বলেন ‘আমি বাজি ধরে বলতে পারি রাশিয়া বিশ্বকাপে কমপক্ষে ৩৫ গোল লং রেঞ্জ থেকে হবে, কারন এটির সাথে কাজ করা কঠিন। এবং এটি একটি প্লাস্টিকের ফিল্ম দ্বারা আচ্ছাদিত যা এটি ধরে রাখা কঠিন করে তোলে। গোলরক্ষকরা এই বলের জন্য অনেক সমস্যা হবে। এখনও সময় আছে তারা যেন  এটি পরিবর্তন করে’।

যদিও বিশ্বকাপের বলকে নিয়ে এর আগেও আনেকে নেতিবাচক সমালোচনা করেছেন। ২০১০ দক্ষিন আফ্রিকা বিশ্বকাপের বল জাবুলানিকে বেশির ভাগ খেলোয়াররা বলেছেন এই বল খুবই হালকা এবং বাতাসে খুব লাফালাফি করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই বল দিয়েই খেলা হয় এবং স্পেন শিরোপা নিয়ে নেয়।

আসল টেলারস্টার   হলো সর্বকালের অন্যতম একটি সেরা ফুটবল, যা ফুটবলের ডিজাইনকে পরিবর্তন করে দিয়েছে। ১৯৭০ এবং ১৯৭৪ বিশ্বকাপের আইকনিক ওই বলকে আবারও উপভোগ করার জন্য গত নভেম্বর অভিষেক হয় টেলারস্টার ১৮। নতুন এই বল এনএফসি চিপ অন্তর্ভুক্তির মাধেমে নতুনত্ব এবং একটি নতুন স্তরের নকশা করা হয়েছে, যা দর্শক ও খেলোয়ারদের দিবে সম্পূর্ণ নতুন এক অভিজ্ঞতা।

দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কি হয় এই বল দিয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বের খেলা হয় নাকি বল পরিবর্তন করা হয়। আর এই বল দিয়েই খেলা হলে দর্শক ও খেলোয়ার কিরূপ উপভোগ করে।

SHARE