টটেনহ্যামের বড় জয়ে ইনজুরড হলেন হেরি কেইন

টটেনহ্যাম জয় পেয়েছে ১-৪ বিশাল ব্যবধানে, কিন্তু হারিয়েছে দলের সবচেয়ে বড় তারকা হেরি কেইনকে।

কদিন আগেই নিছেদের মাঠে ইভেন্তাসের কাছে হেরে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন কাপ থেকে বিদায় নিল টটেনহ্যাম। কিন্তু সেই ক্ষত শুকাতে না শুকাতেই আরেকটা দুঃ সংবাদ পেল লন্ডনের এই দলটি। আহত হয়ে ১ মাসের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেলেন দলের প্রান ভোমরা হেরি কেইন। ম্যাচের ৩৪ মিনিটে ডান গোড়ালি ব্যাথা পেয়ে মাঠ ছারেন ইংলিশ এই তারাকা। ক্রিশ্চিয়ান এরিক্সেনের ক্রস বল শুট দিতে গিয়ে এএফসি বোর্নেমাউথ এর গোলকিপার ‘আসার বেগভিকের’ সাথে ধাক্কা খেয়ে আহত হয়ে দ্রুত মাঠ ছারেন হেরি কেইন। হেরি কেইন এই সিজনে স্পারসদের হয়ে মোট গোল ৩৫ গোল করেন। যার মধ্য প্রিমিয়ার লিগে ২৪ টি, উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে ৭ টি এবং বাকি ৪ টি এফএ কাপে।

ম্যাচ শুরুতে এগিয়ে যায় এএফসি বোর্নেমাউথ।ম্যাচের ৭ মিনিটে অ্যাডাম স্মিথের এসিস্টে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন জুনিয়র স্ট্যানিসালাস। কিন্তু প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার দশ মিনিট আগে টটেনহ্যামেকে সমতায় ফেরান ডেলে আলি।ম্যাচের ৩৫ মিনিটে সার্জ আউরিয়র দারুন এক ক্রসে গোলে পরিনিত করেন এই ইংলিশ মিডফিল্ডার। প্রথমার্ধে আর কোন গোল হয়নি।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচের ৬২ মিনিটে নিজের প্রথম গোল করে দলের ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সন হেইং-মিন। ডেলে আলির পাস থেকে বল পেয়ে গোল করতে ভুল করেনি এই কোরিয়ান ফুটবলার। ম্যাচের ৮৪ মিনিটে গোলে সমতায় ফেরাতে পারতো বোর্নেমাউথ, কিন্তু আফসাডের কারনে গোলটি বাতিল করেন রেফারি। লুইস কুকের ফ্রি কিকে বল জালে জরান ক্যালাম উইলসন, কিন্ত দলের সহকর্মী ডেভিসন সানচেজ তার আগেই আফসাইডের ফাঁদে পা দেন।

ম্যাচের ৮৬ মিনিটে আহত হয়ে মাঠ ছারেন টটেনহ্যাম খেলোয়ার ডেলে আলি। এর ১ মিনিট পরেই ম্যাচে নিজের ২য় এবং দলের ৩য় গোলটি করেন টটেনহ্যাম খেলোয়ার সন হেইং-মিন। দারুন এক বিপরীত আক্রমণে ক্রিশ্চিয়ান এরিক্সেন কাছ থেকে বল পেয়ে গোল-কিপারকে কাটিয়ে গোল করেন কোরিয়ান তারকা। টটেনহ্যামের হয়ে লিগে এই সিজনে মোট ১২ টি গোল করেন সন হেইং-মিন। ম্যাচের ইনজুরি টাইমে বোর্নেমাউথের উপর শেষ পেরেকটি মারেন সার্জ আউরিয়র। কিরিন ট্রিপায়ার ক্রসে হেড দিয়ে গোল করে টটেনহ্যামের বড় জয় নিশ্চিত করেন আইভরি কোস্টের এই ডিফেন্ডার। এই ম্যাচ এর জয় দিয়ে টটেনহ্যাম সর্বশেষ ১২ টি খেলার অপরাজিত থাকার রেকর্ড করে।

লিগের অন্য খেলায় টটেনহ্যামের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী আর্সেনাল ওয়াটফোর্ডকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে। ম্যাচের ৮ মিনিটে আর্সেনালকে এগিয়ে দেন শোকদরন মোস্তফি। মেসুত ওজিলের ফ্রিকিকে হেড দিয়ে বল জালে জরান মোস্তফি। ৫৯ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সদ্য আর্সেনালে যোগ দেয়া পিয়ের-ইমেরিক আউবুমিয়াং। হেনরিক মখতারন এসিস্টে গোল করেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ড এর সাবেক এই খেলোয়ার। ম্যাচের ৬২ মিনিটে ব্যবধান কমাতে পারতো ওয়াটফোর্ড। আর্সেনালের খেলোয়ার পতিপক্ষকে ফাউল কারার অপরাধে পেলান্টি পায় ওয়াটফোর্ড। কিন্ত সেই পেলান্টি জালে জরাতে ব্যর্থ হয় ওয়াটফোর্ডের খেলোয়ার ট্রয় ডেনি। ৭৭ মিনিটে দলের ৩য় গোল করে জয় নিশ্চিত করেন হেনরিক মখতারন। পিয়ের-ইমেরিক আউবুমিয়াং কাছ থেকে বল পেয়ে গোলে পরিনিত করেন তিনি।

আজ রাতে প্রিমিয়ার লিগের একমাত্র খেলায় স্টোক সিটির মুখামুখি হবে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষ থাকা ম্যানচেস্টার সিটি।