চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনালে কে কাকে পেল?

অনেকে জল্পনা কল্পনার পর অবশেষে গত কাল হয়ে গেল চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনালের ড্রয়। গত বারের চ্যাম্পিয়ন্স রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়ার ক্রিস্টিয়ানো  রোনালদো তাদের শেষ আটে প্রাতিপক্ষ চয়েছিল বার্সেলোনাকে এবং বার্সেলোনার খেলোয়ার  আন্দ্রেস ইনয়েস্তা  ম্যানচ্যাস্টার সিটিকে। কিন্তু তাদের আশা আর পুরন হল না। রিয়ালের প্রতিপক্ষ ইতালিয়ান ক্লাব ইউভেন্তাস এবং বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ পরেছে আরেক ইতালিয়ান ক্লাব রোমা। আসেন এক নজরে দেখে নেই চ্যাম্পিয়ন্স  লীগের কোয়ার্টার ফাইনালে কে কাকে পেল এবং অতীত দেখায় তাদের ফলাফল।

রিয়াল মাদ্রিদ পেয়েছে গতবারের ফাইনালের প্রতিপক্ষ  ইউভেন্তাস। ৩ই এপ্রিল  তুরিনে ১ম লেগ এবং ১১ এপ্রিল সান্তিয়াগো বের্নাব্যুতে ২য় লেগ অনুষ্ঠানিত হবে।  চ্যাম্পিয়ান লীগে  রিয়াল মাদ্রিদ এবং ইউভেন্তাস দুই লেগ মিলিয়ে মোট ১৯ বার মুখামুখিতে রিয়াল জিতেছে ৯ বার এবং ইউভেন্তাস জিতেছে ৮ বার বাকি ২ টা ড্র হয়েছে। এর মধ্যে ২ টা ফাইনাল হয়েছে যার দুটাই জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ, একটা ১৯৯৭/৯৮ সিজনে এবং আরেকটা গত সিজনে। ২০০০ সালের পর গতবারের ফাইনাল ছাড়া নকআউট স্টেজে রিয়াল জুভে মোট তিনবারের দেখায় তিনবারেই ইউভেন্তাস পরবর্তী রাউন্ডে যেতে সক্ষম হয়। এই চ্যাম্পিয়ান লীগ হয়তো ইতালীয় গোল প্রহরি বুফনের শেষ চ্যাম্পিয়ান লীগ। ফিফা বিশ্বকাপ সহ সকল ট্রপি জিতলেও চ্যাম্পিয়ান লীগ তার কাছে এখনও অধরা।

চ্যাম্পিয়ান লীগের শেষ আটে এফসি বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ ইতালিয়ান ক্লাব রোমা। এর আগে চ্যাম্পিয়ান লীগে তারা দুই লেগ মিলিয়ে মোট চার বার দেখা হয়ছে। এই চার বারের দেখায় বার্সেলোনা জিতেছে এক বার রোয়া জিতেছে এক বার বাকি দুই ম্যাচ ড্র হয়েছে। সর্বশেষ দেখায় ক্যাম্প নু তে ৬-১ গোলে বিশাল ব্যবধানে জয় পায় বার্সেলোনা। ৪ই এপ্রিল  নু ক্যম্পে ১ম লেগ এবং ১০ই এপ্রিল রোমার অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ২য় লেগ অনুষ্ঠানিত হবে।

৬০ বছর পর আবারো চ্যাম্পিয়ান লীগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল স্পেনিস ক্লাব সেভিয়া। তারা সর্বশেষ কোয়ার্টার ফাইনাল খেলোছিল ১৯৫৭/৫৮ সিজনে। এবারের কোয়ার্টার ফাইনালের তাদের  প্রতিপক্ষ জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখ। সিজনের শুরুতে খারাপ আবস্থায় থাকলেও জুপ হেইঙ্কেসের ছোয়ায় বদলে যায়  বায়ার্ন মিউনিখ। তুলনামূলক ভাবে বায়ার্ন সহজ পতিপক্ষ পেলেও সেভায়াকে ছোট করে নেয়ার কিছু নেই। কারন শেষ ১৬তে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে হারিয়ে আজকে তারা কোয়ার্টার ফাইনালে এবং তারা ২০১৩/১৪, ২০১৪/১৫, ২০১৫/১৬ হ্রেটিক উয়েফা ইউরোপা লিগ জয়ী। বায়ার্ন মিউনিখ সেভিয়াকে হারাতে ভালোই ভেগ পোহাতে হবে। ৩ই এপ্রিল  সেভিয়ার র্যামন সানচেজ পিজেজান স্টেডিয়ামে ১ম লেগ এবং ১১ই এপ্রিল মিউনিখের অ্যালানজ এরিনায় ২য় লেগ অনুষ্ঠানিত হবে।

ইউরোপিয়ান মঞ্চে সবচেয়ে সফল ইংলিশ দল লিভারপুল আট বছর পর কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে। তার ৪ বছর আগে ২০০৪/০৫ সিজনে তারা সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ান লীগ জিতেছিলো। কিন্ত তার পর তারা তাদের হারিয়ে খোঁজছে। সর্বশেষ প্রিমিয়ার লীগ জিতেছিল ২৭ বছর আগে। কোয়ার্টার ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ উরতে থাকা পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি। চ্যাম্পিয়ান লীগ জয়ের লক্ষে কড়িকড়ি অর্থ দিয়ে দল সাজিয়েছে ম্যান সিটি। এর মাধ্যে ম্যান সিটির লীগ টাইটেল অনেকটাই নিশ্চিত। যদিও এই ম্যাচে ম্যান সিটি ফেভারিট। কিন্তু এবারের চ্যাম্পিয়ান লীগে সবচেয়ে বেশী গোল করেছে লিভারপুল। এবং এক মাসে সর্বশেষ দেখায় লিভারপুল ৪-৩ গোলে ম্যান সিটিকে হারিয়েছে। ৪ই এপ্রিল  লিভারপুলের অ্যানফিল্ডে ১ম লেগ এবং ১০ই এপ্রিল ম্যানচেস্টার সিটি এতিহাদ স্টেডিয়াম ২য় লেগ অনুষ্ঠানিত হবে।

এছারাও একেই দিনে ইউরোপা লীগের ড্র অনুষ্ঠানিত হয়। জার্মান ক্লাব লিপজিগ এর প্রতিপক্ষ ফরাসি ক্লাব মার্সাইল, ইংলিশ জায়ান্ট আর্সেনাল এর প্রতিপক্ষ রাসিয়ান ক্লাব সিএসকেএ মস্কো, স্পেনিস ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের প্রাতিপক্ষ পর্তুগিজ ক্লাব স্পোরটিং সিপি, ইতালিয় ক্লাব ল্যাজিওর প্রাতিপক্ষ অস্ট্রিয়ান ক্লাব সলজবার্গ। সবগুলো খেলার ১ম লেগ ৫ই এপ্রিল এবং ২য় লেগ ১২ই এপ্রিল হোম এবং এওয়ে ভিত্তিতে অনুষ্ঠানিত হবে।

SHARE