ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোলে রিয়াল  মাদ্রিদের নাটকীয় জয়

রিয়াল  মাদ্রিদ  হয়ত আবারও  লা লিগায় পয়েন্ট হারাতে পারত, কিন্তু ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জোরা গোলে  নাটকীয়  জয় নিয়ে মাঠ ছারে লস ব্লাঙ্কোসরা।

পিএসজির সাথে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ম্যাচ জিতে খুবই ফুরফুরে মেজাজে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্ত লিগ ম্যাচ নিজেদের হারিয়ে খুজছে লস ব্লাঙ্কোসরা। পয়েন্ট টেবিলে  চিরপ্রতিদন্দী বার্সেলোনা থেকে ১৫ পয়েন্ট পিছনে। লা লিগা চলে গিয়েছে ধরা-ছোয়ার বাইরে।

গতকাল রাতে রোনালদোর জোরা গোলে এইবারকে ২-১ গোলে হারিয়েছে   ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। কিন্ত জয় এত সহজে আসে নি। ম্যাচের ফলাফলের মত জমজমাট এক ম্যাচ হয়েছে। হোম গ্রাউন্ডের  সুবিধা নিয়ে প্রথম থেকেই লস ব্লাঙ্কোসরদের  ওপর আতক্ক সৃষ্টি করেছিল এইবার। বল নিজেদের কাছে রেখেছে ৫৪%। আক্রমনের পর আক্রমন করে প্রতিপক্ষকে চাপে রেখেছিল এইবার। রক্ষণভাগ ও কেইলর নাভাসের সুবাধে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায়নি রিয়াল।

এইবার প্রথম থেকেই আক্রমন্তক খেলেছে। রিয়াল কে একরকম কোনঠাসা করে ফেলছিল এইবার। কিন্ত ম্যাচের ৩৪ মিনিটে লুকা মডরিচ দুর্দান্ত থ্রু বল জালে জরিয়ে রিয়ালকে এগিয়ে দেয় সিআরসেভেন। প্রথমার্ধে শেষ হয় ওই এক গোলেই।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫ম মিনিটে পেড্রো লিওন এর কর্নার থেকে উড়া আসা বলে ধারুন এক হেডে গোল করে স্বাগতিকদের সমতা ফেরান। এর পর দুই দলই প্রান-প্রন চেষ্টত করেছে গোল করতে, কিন্ত কেউ গোল করতে পারছিলনা। খেলার সময় যত যাচ্ছিল মনে হচ্ছিল রিয়াল আবারও পয়েন্ট হারাবে। কিন্ত ৮৪ মিনিটে গোল করে বসে সিআরসেভেন। দানি কারভাহলের ক্রস থেকে বল পেয়ে বুলেট গতির হেড দিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো দলকে ২-১ গোলে এগিয়ে নিয়ে যান।

এই ম্যাচে এইবারের কাছে ৫৪% বল দখল ছিল, রিয়ালের ছিল ৪৬%। এইবার মোট ৫ বার অন টার্গেট এবং ৫ বার অফ টার্গেট শুট নিয়েছে, রিয়াল নিয়েছে ৬ বার অন টার্গেট এবং ৫ বার অফ টার্গেট। এইবার এই ম্যাচ ৮ টি কর্নার পেয়েছে যা প্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদের থেকে ২ টি বেশি। রিয়াল মাদ্রিদ ৩ বার অফসাইডের ফাঁদে পা দিলেও এইবার কোন অফসাইডের ফাঁদে পা দেয় নি। এইবার প্রতিপক্ষকে ফাউল করেছে ১২ বার এবং রিয়াল করেছে ৭ বার ও উবই দল ১ বার করে হলুদ কার্ড খেয়েছে।

এই ম্যাচের মাধ্যমে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো সর্বশেষ তিন লিগ ম্যাচে ৬ গোলে অবদান রাখেন (৫টি গোল এবং ১টি এসিস্ট )। রিয়ালে হয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো সর্বশেষ সাত ম্যাচে সব ম্যাচএ গোল করেছেন, মোট গোল করেছেন ১৩ টি। রিয়ালে হয়ে লুকা মডরিচ সর্বশেষ ৫ এসিস্ট করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে পেদ্রো লিওন মোট ছয়টি এসিস্ট করেছেন।

আর ওই দিকে লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের চির প্রতিদন্দি  বার্সেলোনা মালাগার বিরুদ্ধে  ২-০ গোলে জয় পেয়েছে। বার্সেলোনা হয়ে গোল করেন লুইস সুয়ারেজ এবং কোতিনহো। ম্যাচের ১৫ মিনিটে বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন সুয়ারেজ। জর্ডি আলবার দারুন এক  ক্রস থেকে হেড দিয়ে বল জালে জরান এই উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। ম্যাচের ২৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ফিলিপ কোতিনহো। ওসমান ডেমবেলের নিখুত পাসে গোলে পরিনিত করেন এই ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বিগ ম্যাচে মার্কাস রাশফোর্ড এর জোরা গোলে লিভারপুল কে ২-১ গোলে হারায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ম্যাচের ১৪ মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেয় রাশফোর্ড। এই গোলের এসিস্ট দাতা ছিলেন বেলজিয়ান স্ট্রাইকার  রোমেলু লুকাকু।এর দশ মিনিট পর ২৮ মিনিটে দলকে আবারও গোলের মাধ্যমে ম্যাচে নিজের জোরা গোল পুরন করেন মার্কাস রাশফোর্ড। ম্যাচে ফিরতে মরিয়া লিভারপুলকে ঠেকাতে ৬৬ মিনিটে নিজেদের জালেই বল ডুকিয়ে দেয়  ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ডিফেন্ডার এরিক বেইলি। পুরু ম্যাচ ৬৮% বল নিজেদের দখলে রেখেও কোন গোল করতে সক্ষম হয়নি লিভারপুল। শেষে  ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছারে স্বাগতিক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।